1. info@dainikbd24.com : দৈনিক বাংলাদেশ : দৈনিক বাংলাদেশ
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরাম, নোবিপ্রবি শাখার উদ্যোগে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ ও উদ্যোক্তা কর্মশালা অনুষ্ঠিত। ওসি সাজ্জাদ হোসেন’র কৌশলী ভূমিকায়, পলাশবাড়ীতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপক উন্নতি অমর একুশের বই মেলায় শাবানা ইসলাম বন্যার অপূর্বা ট্রাব স্মার্ট পারফরম্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৪ এ ভূষিত সঙ্গীত শিল্পী পুষ্পিতা ভাষা আন্দোলন বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল নোবিপ্রবিতে মাতৃভাষা দিবসে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে হট্টগোল স্ত্রীর সর্বস্ব হাতিয়ে নিয়ে ২৭ বছর পর তালাক! পলাশবাড়ীতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে শুভেচ্ছা ভালোবাসায় সিক্ত সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে দেশ বরেণ্য পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার ৮২ তম জন্মবার্ষিকীতে জেলা যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি

গোপালগঞ্জে তীব্র শীতে জনজীবন বিপযর্ন্ত, সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ১০.৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস

স্টাফ রিপোর্টার,গোপালগঞ্জঃ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ৭ জানুয়ারি, ২০২৩

গোপালগঞ্জে ঘন কুয়াশার সাথে হিমেল হাওয়া বয়ে যাওয়ায় তীব্র শীতে জনজীবন বিপযর্ন্ত হয়ে পড়েছে। গত কয়েকদিন ধরে জেলায় সূয্যের মুখ দেখা যায়নি। জেলার সর্বনিন্ম তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা গেছে, শনিবার সকাল থেকে জেলায় দেখা মেলেনি সূর্যের। ঘন কুয়াশা ও হিমেল হাওয়ায় বাড়িয়ে তুলেছে শীতের তীব্রতা। বৃষ্টির ফোটার মত পড়ছে কুয়াশা। ফলে জনজীবন অনেকটা স্থবির হয়ে পড়েছে। কুয়াশাচ্ছন্ন থাকায় দূর্ঘটনা এড়াতে সড়ক-মহাসড়ক দিয়ে হেডলাইট জ্বালিয়ে সড়ক ও মহাসড়ক দিয়ে চালাচল করছে যানবাহন।

বিভিন্ন স্থানে আগুন জ্বালিয়ে আগুন পোহাচ্ছে অনেকেই। তবে সবচেয়ে কষ্টে পড়েছে ছিন্নমুল ও খেটে খাওয়া মানুষেরা। অভাবের তাড়নায় শীত উপেক্ষা বাইরে বের হলেও গরম কাপড়ের অভাবে কষ্ট পাচ্ছেন তারা। শীতজতিন রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে যাচ্ছে নানান বয়সীরা। হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে থাকা শয্যার তুলনায় অনেক বেশি সংখ্যক রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। অন্য ওয়ার্ডগুলোতেও দৈনিক শীতজনিত অসুস্থতা নিয়ে শিশু বৃদ্ধাসহ প্রতিদিন অসংখ্য রোগী ভর্তি হচ্ছেন।

গোপালগঞ্জ শহরের রিক্সাচালক অাবুল শেখ বলেন, হিমেল হাওয়ায় রিক্সা চালানোই কঠিন হয়ে পড়েছে। তীব্র শিতের কারনে অনেকেই বাসা থেকে বের হচ্ছে না। এজন্য আমাদের আয় অনেকটা কমে গেছে।

সদরের রঘুনাথপুর ইউনিয়নের কৃষক অবনি মন্ডল বলেন, তীব্র শিতের কারনে আমরা জমিতে যেতে পারছিনা। বর্তমানে ইরি ধানের সময়, কাজেরও অনেকচাপ। তারপরেও আমরা শিতের কারনে জমিতে যেতে চাচ্ছি না। এদিকে শিতের কানে শ্রমিক ও পাচ্ছি না।

গোপালগঞ্জ আবহাওয়া অফিসের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আবু সুফিয়ান জানিযেছেন, আরো ২-৩ দিন জেলায় কুয়াশা থাকবে। আগামী সপ্তাহে জেলার তাপমাত্রা আরো কমবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর...

© All Rights Reserved© 2022 DainikBD24

Theme Customized BY Sky Host BD