1. info@dainikbd24.com : দৈনিক বাংলাদেশ : দৈনিক বাংলাদেশ
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৫:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ওসি সাজ্জাদ হোসেন’র কৌশলী ভূমিকায়, পলাশবাড়ীতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ব্যাপক উন্নতি অমর একুশের বই মেলায় শাবানা ইসলাম বন্যার অপূর্বা ট্রাব স্মার্ট পারফরম্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০২৪ এ ভূষিত সঙ্গীত শিল্পী পুষ্পিতা ভাষা আন্দোলন বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল নোবিপ্রবিতে মাতৃভাষা দিবসে ফুল দেওয়াকে কেন্দ্র করে হট্টগোল স্ত্রীর সর্বস্ব হাতিয়ে নিয়ে ২৭ বছর পর তালাক! পলাশবাড়ীতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে শুভেচ্ছা ভালোবাসায় সিক্ত সাপ্তাহিক গাইবান্ধার বুকে দেশ বরেণ্য পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়ার ৮২ তম জন্মবার্ষিকীতে জেলা যুবলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি বগুড়ার আদমদিঘীতে জাতীয় দৈনিক ভোরের কাগজের সাংবাদিক মঞ্জু’র দ্বি-খন্ডিত লাশ উদ্ধার।

পাঁচ দফা দাবিতে গোপালগঞ্জ বশেমুরবিপ্রবি’র উপাচার্য অবরুদ্ধ

স্টাফ রিপোর্টার,গোপালগঞ্জঃ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২২

পাঁচ দফা দাবিতে গেটে তালা ঝুলিয়ে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্য একিউএম মাহবুবকে অবরুদ্ধ করে রাখে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বশেমুরবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষক-কর্মচারীরা।

আজ সোমবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে উপাচার্যের কক্ষের সামনের গেটে তালা লাগিয়ে দেন বশেমুরবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষক-কর্মচারীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষক-কর্মচারীরা জানান, বশেমুরবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজে ১৯ জন শিক্ষক ও ৪ জন কর্মচারী আছেন। তিন বছর ধরে তারা কোনো বেতন পাচ্ছেন না। বেতন না পাওয়ায় পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন বতে হচ্ছে তাদের। এ নিয়ে একাধিকার কথা বললেও কোন কাজের কাজ কিছু হয়নি।

বশেমুরবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক আলিয়া বেগম বলেন, বশেমুরবিপ্রবি স্কুল অ্যান্ড কলেজ নাকি ভেঙে দেওয়া হবে। এখনও পর্যন্ত আমাদের চাকরী স্থায়ীকরণ হয়নি। চাকরী স্থায়ীকরণসহ পাঁচ দফা দাবিতে উপাচার্যের কক্ষে তালা লাগানো হয়েছে। দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত তালা খুলব না।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কামরুজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থাকতে হলে অবশ্যই সেটার অনুমোদন থাকতে হবে, যা এই প্রতিষ্ঠানের নেই। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে কোনো প্রতিষ্ঠান করতে হলে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্ট থেকে অনুমোদন নিতে হয়। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সে রকম কোনো অনুমোদন ছিল না বিধায় রিজেন্ট বোর্ড থেকেও বাদ দেওয়া হয়েছিল।

উপাচার্য অবরুদ্ধের বিষয়ে কামরুজ্জামান বলেন, প্রতিটা জিনিসের একটা পদ্ধতি আছে এবং সেই পদ্ধতি অনুযায়ী এগোতে হবে। আজ তারা হুট করে এসেই উপাচার্য স্যারের কক্ষের সামনে তালা লাগিয়ে দিয়েছেন। এটা কোনো সমাধান নয়। সমাধান করতে হলে আলোচনা করতে হবে।

আন্দোলনকারীদের পাঁচ দফা দাবিগুলো হচ্ছে—চাকরী স্থায়ীকরণ, বকেয়া বেতন পরিশোধ, আগে যে ভবনে ক্লাস করা হতো সেই ভবনে ফেরত যাওয়া, শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য গাড়ির ব্যবস্থা পুনরায় চালু করা এবং ওই প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগ করা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর...

© All Rights Reserved© 2022 DainikBD24

Theme Customized BY Sky Host BD