শিক্ষার্থীদের টি-শার্টের প্রতি ইঞ্চি জুড়ে অশ্লীল শব্দ!


দৈনিক বাংলাদেশ প্রকাশের সময় : নভেম্বর ১৩, ২০২১, ৬:৩২ অপরাহ্ণ / ৭১
শিক্ষার্থীদের টি-শার্টের প্রতি ইঞ্চি জুড়ে অশ্লীল শব্দ!

শিক্ষার্থীদের শরীরের পরিধেয় টি-শার্টে লেখা বেশকিছু ইংরেজি আর বাংলার মিশ্রণ অশ্লীল শব্দ। যেগুলো দেখেই বিব্রত হচ্ছেন শিক্ষক ও অভিভাবক। ইতোমধ্যে সেই লেখা যুক্ত ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। শুরু হয়েছে সমালোচনার ঝড়।

এসব শব্দ কোন সংস্কৃতি থেকে এনেছেন কিংবা কেনোই ব্যবহার করছেন তা জানেন না সেই শিক্ষার্থীরাও।

এমন চিত্র দেখা গেছে গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাইস্কুলের ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানে। শিক্ষার্থীরা র‌্যাগ ডে’র নামের একটি অনুষ্ঠানে এমন কর্মকাণ্ড করেছেন বলে জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাইস্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান উপলক্ষে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ মুনছুর আলীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও দুআ অনুষ্ঠিত হয়।

তারপর বিদায়ী এসএসসি শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন অসামাজিক গানের তালে নেচে নেচে বিদায় অনুষ্ঠানের নামে র‍্যাগ-ডে পালনে দিশেহারা ছিল বলে জানা গেছে । সেই নাচের ভিডিওতে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা সাদা রঙের টি-শার্ট পরিধান করেছিল । টি-শার্টে প্রত্যেকেই স্মৃতির জানালা থেকে উঁকি দিয়ে লিখেছিল মধুময় স্মৃতির কিছু কথা। তবে বেশিরভাগ শিক্ষার্থী নিজেদের টি-শার্টে লিখেছেন অশ্লীল ইংরেজি আর বাংলা শব্দ।

বিদ্যালয়টির কয়েকজন শিক্ষার্থীর কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, আনন্দের ছলে লিখেছি লেখাগুলো। তবে এগুলো লেখা আমাদের ঠিক হয়নি।

এসব বিষয়ে জানতে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক আবুল কাশেমের মুঠোফোনে কল করে সাংবাদিক পরিচয় দিলে ব্যস্ত আছি বলে ফোনের সংযোগ কেটে দেয়। পরে একাধিকবার তার ফোনে কল করা হলেও তাকে পাওয়া যায় নি।

অনুষ্ঠানটিতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বামনডাঙ্গা ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি শমেশ উদ্দিন বাবু। মুঠোফোনে এ বিষয়ে শমেস উদ্দীন বাবু জানান,বিদায় অনুষ্ঠান মানে শোকের অর্থাৎ দুঃখের। কিন্তু জিনিস টা তারা ভালো করে নি । তাছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে শক্ত হওয়া দরকার বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ন্যাক্কারজনক এমন ঘটনাকে নেতিবাচক হিসেবে উল্লেখ করে বামনডাঙ্গা আব্দুল হক ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ইমান হোসেন বলেন,অশ্লীলকে সবাই খারাপ বলবে। ভালো যারা অর্থাৎ মুক্ত মনের মানুষ যারা তারা কখনোই এটিকে ভালো দিক হিসেবে নেবে না।

জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক শিক্ষাবিদ মোঃ নূরুল আলম এ ঘটনাটিকে অমার্জনীয় অপরাধ দাবী করে জানান, শিক্ষার্থীদের আচরণিক পরিবর্তন থাকতে হবে। যা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ শেখাতে ব্যর্থ হয়েছেন৷

সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মুঃ মাহমুদ হোসেন মন্ডল এ বিষয়ে বলেন,বামনডাঙ্গা শিশু নিকেতন এন্ড মডেল হাইস্কুলে টিশার্টে অশ্লীল শব্দ; তা নিশ্চিত আপত্তিকর। প্রশাসনিক ভাবে বিদ্যালয়টিকে শোকজ এর আওতায় এনে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেবেন বলে জানান তিনি।